হাসান আজিজুল হক

0
283

হাসান আজিজুল হক (২ ফেব্রুয়ারি ১৯৩৯–১৫ নভেম্বর ২০২১)

ছিলেন একজন বাংলাদেশী ঔপন্যাসিক ও ছোট গল্পকার। বাংলা ভাষার অন্যতম প্রধান কথাসাহিত্যক হিসেবে পরিগণিত। ষাটের দশকে আবির্ভূত এই কথাসাহিত্যিক তার সুঠাম গদ্য এবং মর্মস্পর্শী বর্ণনাভঙ্গির জন্য প্রসিদ্ধ। জীবনসংগ্রামে লিপ্ত মানুষের কথকতা তার গল্প-উপন্যাসের প্রধানতম অনুষঙ্গ। রাঢ়বঙ্গ তার অনেক গল্পের পটভূমি।

আগুনপাখি (২০০৬) হক রচিত প্রথম উপন্যাস। তিনি ১৯৭০ খ্রিষ্টাব্দে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার লাভ করেন। বাংলাদেশ সরকার তাকে ১৯৯৯ খ্রিষ্টাব্দে একুশে পদকে ও ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দে স্বাধীনতা পুরস্কারে ভূষিত করে।

অসামান্য গদ্যশিল্পী তার সার্বজৈবনিক সাহিত্যচর্চার স্বীকৃতি স্বরূপ ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে “সাহিত্যরত্ন” উপাধি লাভ করেন।

গল্পগ্রন্থ
১ সমুদ্রের স্বপ্ন শীতের অরণ্য (১৯৬৪),
২ আত্মজা ও একটি করবী গাছ (১৯৬৭),
৩ জীবন ঘষে আগুন ১৯৭৩
৪ নামহীন গোত্রহীন ১৯৭৫
৫ পাতালে হাসপাতালে ১৯৮১
৬ নির্বাচিত গল্প ১৯৮৭
৭ আমরা অপেক্ষা করছি ১৯৮৮
৮ রাঢ়বঙ্গের গল্প ১৯৯১
৯ রোদে যাবো ১৯৯৫
১০ হাসান আজিজুল হকের শ্রেষ্ঠগল্প ১৯৯৫
১১ মা মেয়ের সংসার ১৯৯৭
১২ বিধবাদের কথা ও অন্যান্য গল্প ২০০৭

উপন্যাস
১ আগুনপাখি ২০০৬
২ সাবিত্রী উপাখ্যান ২০১৩
৩ শামুক ২০১৫

উপন্যাসিকা
বৃত্তায়ন (১৯৯১)
শিউলি (২০০৬)

প্রবন্ধ
১ কথাসাহিত্যের কথকতা ১৯৮১
২ চালচিত্রের খুঁটিনাটি ১৯৮৬
৩ অপ্রকাশের ভার ১৯৮৮
৪ সক্রেটিস ১৯৮৬
৫ অতলের আধি ১৯৯৮
৬ কথা লেখা কথা ২০০৩
৭ লোকযাত্রা আধুনিক সাহিত্য ২০০৫
৮ একাত্তর : করতলে ছিন্নমাথা ২০০৫
৯ ছড়ানো ছিটানো ২০০৮
১০ কে বাঁচে কে বাঁচায় ২০০৯
১১ বাচনিক আত্মজৈবনিক ২০১১
১২ চিন্তন-কণা ২০১৩
১৩ রবীন্দ্রনাথ ও ভাষাভাবনা ২০১৪

শিশুসাহিত্য
লালঘোড়া আমি (১৯৮৪ সালে প্রকাশিত কিশোর উপন্যাস)
ফুটবল থেকে সাবধান (১৯৯৮ সালে প্রকাশিত শিশুতোষ গল্প)

স্মৃতিকথা/আত্মজীবনীমূলক
ফিরে যাই, ফিরে আসি (১ম অংশ, ২০০৯)
উঁকি দিয়ে দিগন্ত (২য় অংশ, ২০১১)
টান (২০১২)
লন্ডনের ডায়েরি (২০১৩)
এই পুরাতন আখরগুলি (৩য় অংশ, ২০১৪)

(তথ্য উইকিপিডিয়া থেকে সংগৃহীত)

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে