মোঃ আবুল হাসান।। Abul Hasan

0
52

একজন মানবিক মানুষ মোঃ আবুল হাসান

প্রতিটি মানুষের স্বপ্ন থাকে, কিন্তু স্বপ্নের পথে পা বাড়ালেই একের পর এক আসতে থাকে প্রতিবন্ধকতা। যে ব্যক্তি এসব প্রতিবন্ধকতা ডিঙিয়ে এগিয়ে যাবেন তিনিই হবেন সফল। আজ এমনই একজন সমাজ সেবক কে নিয়ে কথা বলব। যিনি অনেক বাধা ও প্রতিবন্ধকতা ডিঙিয়ে একজন সফল ব্যক্তি (মানবতার ফেরিওয়ালা) হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন।তিনি হলেন সুনামগঞ্জ জেলার মধ্যনগর উপজেলার চামরদানী গ্রামের আমেরিকা প্রবাসী ও একজন মানবিক মানুষ মোঃ আবুল হাসান।সাধারণ মানুষের প্রত্যাশা পূরণে নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছেন। তারপরও মানুষের প্রত্যাশা থাকে। তিনি তাঁর পরিশ্রম, সাহস, ইচ্ছাশক্তি, একাগ্রতা আর প্রতিভার সমন্বয়ে অসুস্থ মানুষ,সামাজিক প্রতিষ্ঠান, মসজিদ,মাদ্রাসার উন্নয়নে নিজের পরিশ্রমে অর্জিত অর্থ থেকে সহায়তা করে যাচ্ছেন।
আমেরিকা থেকে ২০১৬ সালে তিনি যখন দেশে আসেন তখন নিজের অর্থায়নে চামরদানী গ্রামের মসজিদের টাইলস ও মোজাইকের কাজ,তারপর মজিদের রংয়ের কাজ এবং ওযুর জন্য সার্বমাজেবল টিউবওয়েল স্থাপন করেছেন।এছাড়াও হামিদপুর হযরত শাহজালাল (রহঃ) হাফিজিয়া মাদ্রাসার নির্মাণ কাজের জন্য এককালীন লক্ষাধিক টাকা ও নিয়মিত মাসিক মাদ্রাসার একজন সদস্য হিসেবে চাঁদা দিয়ে যাচ্ছেন। তাহিরপুর উপজেলার লামাগাঁও জামে মসজিদের উন্নয়নে নগদ অর্থ সহায়তা , কলমাকান্দা উপজেলার কাঞ্চনপুর মসজিদের উন্নয়নে নগদ অর্থ প্রদান করেছেন।এই মানবিক মানুষটি আজীবন মানুষের পাশে এভাবে থাকতে চান।

মোঃ আবুল হাসান গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মোঃ আব্দুল ছোবান, মাতা নয়ন বানু।চামরদানী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে অষ্টম শ্রেণি,পরে মধ্যনগর বিশ্বেশ্বরী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে কৃতিত্বের সাথে এসএসসি এবং নেত্রকোণা জেলার শ্যামগঞ্জ হাফেজ জিয়াউর রহমান ডিগ্রি কলেজ থেকে ইন্টারমিডিয়েট পাশ করে সিলেটের ঐতিহ্যবাহী এমসি কলেজ থেকে বিএসসি কমপ্লিট করে আমেরিকাতে পাড়ি জমান।বর্তমানে বাবা,মা, স্ত্রী সন্তান নিউইয়র্কের জ্যামাইকাতে স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন।
মোঃ আবুল হাসান বলেন, আমি আমার উপার্জিত অর্থ দিয়ে আজীবন মানুষের পাশে দাঁড়াতে চাই।যেমন দরিদ্র, অসহায় মানুষ ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা, সামাজিক প্রতিষ্ঠান মসজিদ মাদ্রাসার উন্নয়নে সহায়তা করে যাচ্ছি। আমার এই কার্যক্রম ধারাবাহিকভাবে চলমান থাকবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে