বদনা সমাচার

0
105

বদনা সমাচার

ঘরের কোণে রাখা বদনা হঠাৎ গেলো কোথায় ?
মুহুর্তে কতিপয় মাঝে পড়িল হইচই হায়
বড় বোন কয় ঘরের কোণেই বদনাখানা থাকে
স্থান লড়িল ঘন্টা মাঝে বাইরে গেছে কে কে।

ভীষণ লজ্জায় পড়ল সবে ভাবছে মনে মনে
বদনার কি আর পা হয়েছে চলে যাবে বনে?
ভাই আসিল চিৎকার শোনে রাত্র দশটা বাজে
এত রাত্রে বদনা বলে চিল্লাচ্ছ কোন কাজে।

ছোট বোনে জবাব দিল বদনা গেল কোথায়?
কথা শোনে ভাইয়ে বলল একি বলছো হায় হায়!
চিৎকার দিয়ে উচ্চ স্বরে ভাইয়ে তখন বলে
ছাড় দিবোনা কাউকেই আজকে বদনা কিছু হলে।

চিৎকার শোনে বুড়ো দাদু দৌড়ে এলো তখন
কি নিয়ে আজ তর্ক সবে করতেছো এতক্ষণ?
মাথা নিচু করে সবে না বলিল কথা
দাদু ভাবছে কি কারণে হঠাৎ নিরবতা?

নাতনী তখন দৌড়ে এসে বলছে শোন দাদু
না খুঁজিয়ে বদনার জন্য তর্ক করছে শুধু।
পূর্ব কোণে ছিল হয়তো এখন পশ্চিম কোণে
তর্কেতে কি পাবে বদনা খোঁজ করা বিহনে ?

হেসে দাদু বলল তখন ঠিক বলেছো নাতনী
সারা জনম কি শিখালাম বৃথাই মোর খাটুনি।
আয়তো দাদু একটু দেখি বদনাটা পাই কি না
হাত-পাঁচেক পেরুতেই দাদু দেখতে পেলো বদনা।

দাদু তখন ডেকে বললো তোমরা সবে আসো
আগের থেকে পাঁচ হাত দূরেই বদনা দেখতে পাচ্ছো?
এই ভাবেতেই সারা জনম করছো চিল্লাচিল্লি
সফল জনম বিফল করছো করে আলসেগিরী।

কাজের শক্তি গায়ে থাকতেও কাজ দেখোনা চোখে
সাফল্য তাই সারা জনম দূরে দূরেই থাকে।
বৃথা তর্ক না করিয়া কর্ম যদি করো
সারা জনম সুখেই থাকবে দুখ থাকবেনা কারো।

২০/০৬/২০১৭
বৈশাখী ১০৯/১,শেফা মঞ্জিল,খরাদিপাড়া,শিবগঞ্জ, সিলেট।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে