কাসমির রেজা-Kashmir Reza

0
416

পরিবেশ ও হাওর উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি কাসমির রেজা সুনামগঞ্জ জেলার এক আলোকিত মুখ। এলাকার জেলে ও কৃষকদের কাছে এক প্রিয় নাম হয়ে উঠছে কাসমির রেজা । তিনি দুর্যোগে দুর্বিপাকে যেমন হাওরবাসীর পাশে দাঁড়ান, তেমনি হাওর অঞ্চলের সমস্যাগুলো সমাধানে দীর্ঘমেয়াদী সমাধানে ভূমিকা রাখতে সচেষ্ট হন। সুনামগঞ্জ জেলার হাওর অঞ্চলের সুবিধা বঞ্চিত মানুষের জীবনমান উন্নয়নে কাজ করে চলছেন এক দশকের বেশি সময় ধরে। পাশাপাশি পরিবেশ সুরক্ষায় বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করে থাকেন।

সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের ঘাগটিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন কাসমির রেজা। রূপসী নদী যাদুকাটার তীরেই তার বেড়ে উঠা। স্থানীয় বাদাঘাট পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক পাশ করে ভর্তি হন সিলেট সরকারি কলেজে। সেখান থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাশ করার পর ১৯৯৬ সালে ভর্তি হন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে। শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে বিএসএস ও এমএসএস পাশ করে তিনি চাকরি জীবনে প্রবেশ করেন। তার চাকরি জীবন শুরু হয় সাংবাদিকতা দিয়ে। এরপর উন্নয়ন সংগঠন আইডিয়ায় হাওরের পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য বিষয়ক প্রকল্পে কাজ করেন। এরপর অধ্যাপনা পেশায় যোগ দিলেও হাওর আর পরিবেশের প্রতি ভালবাসার টান তার রয়ে যায়। সেই ভালবাসার টানেই ২০১০ সালে আরো কয়েকজন সমমনাদের নিয়ে গঠন করেন পরিবেশ ও হাওর উন্নয়ন সংস্থা। শুরু থেকেই তিনি সংগঠনের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। করোনাভাইরাস সংকটে সংস্থার পক্ষ থেকে ফ্রি টেলিমেডিসিন সার্ভিস, বিনামূল্যে ঔষধ বিতরণ, মাস্ক, সাবান বিতরণ ও ওয়াশ পয়েন্ট স্থাপন, সচেতনতার জন্য মাইকিং ইত্যাদি কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়। ২০১৭ সালে অকাল বন্যায় ফসলহানির পর তিনি হাওরের নিরন্ন মানুষের পাশে দাঁড়ান। বিভিন্ন সংস্থার ও ব্যক্তির সহায়তায় তার গড়া সংগঠন পরিবেশ ও হাওর উন্নয়ন সংস্থা প্রায় দশ হাজার মানুষকে খাদ্য সহায়তা প্রদান করে।

তাছাড়া পরিবেশ ও হাওর উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে তাহিরপুর উপজেলার হাওর পাড়ের ১ হাজার শিশুকে কাপড় দেওয়া হয় এবং তাহিরপুরের ট্যাকেরঘাটে হাওরের ফসল হারানো কৃষক পরিবারের শিশুদের নিরানন্দ ঈদে কিছুটা আনন্দ দেওয়ার উদ্দেশ্যে ‘ছড়াও হাসি হাওরের বুকে’ স্লোগান নিয়ে পরিবেশ ও হাওর উন্নয়ন সংস্থার পক্ষ থেকে এক বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। শিশুদের মাঝে বিতরণ করা হয় নতুন কাপড়, খেলনা বেলুন, বাঁশি ইত্যাদি। এছাড়াও পরিবেশ ও হাওর উন্নয়ন সংস্থা বিভিন্ন সময় ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প, বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি, হাওর রক্ষা বাঁধ মনিটরিংসহ অন্যান্য কাজ করে যাচ্ছে।

পরিবেশ ও হাওর উন্নয়ন সংস্থা গঠনের আগে কাসমির রেজা বেশ কিছু সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও সাহিত্য সংগঠনে কাজ করেন। তিনি শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের মাভৈঃ আবৃত্তি সংসদের প্রতিষ্ঠাতাদের অন্যতম। জাতীয় কবিতা পরিষদের সিলেট জেলা ও বিভাগীয় শাখার সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ উদীচি শিল্পী গোষ্ঠী সিলেট জেলা সংসদের সাংগঠনিক ও আবৃত্তি বিভাগের সম্পাদক, তাহিরপুর সমিতি সিলেট এর প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক ও সুনামগঞ্জ সমিতি সিলেট এর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ২০০১ সালে শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ে সংখ্যালঘু নির্যাতন বিরোধী আন্দোলনের আহ্বায়ক ছিলেন। বর্তমানে তিনি পরিবেশ ও হাওর উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগ অ্যালামনাই এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

ব্যক্তিগত আরাম আয়েশ উপেক্ষা করে শুধু মাত্র হাওরের অসহায় কৃষক ও জেলেদের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য তার এই নিরন্তর প্রচেষ্টা আরও তরুণদের সমাজসেবায় উৎসাহিত করছে। পরিবেশ ও হাওর উন্নয়নে তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা পালন করার জন্য পরিবেশ ও হাওর উন্নয়ন সংস্থা ২০১৮ সালে জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড লাভ করে। প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি উপদেষ্টা, সজীব ওয়াজেদ জয়ের কাছ থেকে কাসমির রেজা এই পদক গ্রহণ করেন।

পরিবেশ ও হাওর উন্নয়ন সংস্থা জেলে ও কৃষক সমাবেশ ভিডিও বার্তার মাধ্যমে উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সংস্থা আয়োজিত বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগ দেন সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী, সংসদ সদস্য ও বিভিন্ন সংস্থার প্রধানগণ।

সামাজিক আন্দোলনের পাশাপাশি কাসমির রেজা বিভিন্ন জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকায় কলাম লিখছেন। বিভিন্ন টেলিভশন চ্যানেলে হাওরের সমস্যা ও সুপারিশ বিষয়ক সাক্ষাৎকার প্রদান করে থাকেন। লিখেন কবিতাও। ‘মেঘ ছুঁয়েছে চাঁদের কপোল’ ও ‘জলজ জীবন যার’ নামে তার লেখা ২টি কবিতার বই রয়েছে। তাছাড়াও তার লেখা আরো ও কাব্যগ্রন্থ যৌথ প্রকাশনায় প্রকাশিত হয়েছে।

তথ্যসূত্রঃ ট্যূরিজম বাংলা

কাসমির রেজা
সভাপতি
পরিবেশ ও হাওর উন্নয়ন সংস্থা
মোবাঃ০১৭১৬৭৮৮৩২৮

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে